অস্ট্রেলিয়ায় সাইক্লোনের পর ভয়াবহ বন্যা

অস্ট্রেলিয়ায় সাইক্লোন পরবর্তী ভারী বর্ষণে সৃষ্ট ভয়াবহ বন্যার কারণে দুটি রাজ্য থেকে হাজার হাজার লোক সরিয়ে নেয়া হয়েছে। শুক্রবার কর্র্তৃপক্ষ বন্যার প্রাণহানি হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে।
চার ক্যাটাগরির সাইক্লোন ডেবি মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় কুইন্সল্যান্ড অঙ্গরাজ্যের বৌয়েন ও এয়ারলি বীচের মধ্যবর্তী স্থানে আঘাত হানে।
ঝড়ের আঘাতে গাছপালা উপড়ে গেছে, বেশ কিছু নৌকা ভেসে গেছে এবং বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
ডেবি উপকূলে আঘাত হানার পর শক্তি হ্রাস করে গ্রীষ্মম-লীয় ঝড়ে পরিণত হলেও এর প্রভাবে নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যে, কুইন্সল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলে ও সিডনিতে শক্তিশালী বাতাস ও মুষলধারে বৃষ্টিপাত হচ্ছে।
নিউ সাউথ ওয়েলসের উপকূলের কাছে লিসমোর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শহরটিতে বন্যার পানির উচ্চতা তিন মিটার হতে পারে বলে স্টেট ইমার্জেন্সি সার্ভিস (এসইএস) সতর্ক করেছে।
এসইএস এর ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি কমিশনার মার্ক মোরো অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনকে বলেন, ‘গতরাতে বন্যায় প্রাণহানি হয়ে থাকতে পারে। এই মুহূর্তে আমরা তা নিশ্চিত করতে পারছি না।’
টুইড হেডস, কিংসক্লিফ ও মুরউলিম্বাহ্সহ বেশ কয়েকটি শহরের বাসিন্দাদের অন্যত্র চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
কুইন্সল্যান্ডের উত্তর প্রান্তে অবস্থিত জনপ্রিয় পর্যটন নগরী গোল্ড কোস্ট ও এর আশপাশের এলাকাগুলোও পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে।
ব্যুরো অব মেটিওরোলজির অঞ্চলিক পরিচালক ব্রুস গান জানান, কুইন্সল্যান্ডের দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে যেখানে গোল্ড কোস্ট অবস্থিত সেখানে গত দুই দিনে বিস্তীর্ণ এলাকায় এক থেকে তিনশ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।
তিনি বলেন, ‘এখনো গোল্ড কোস্টের আশপাশের এলাকায় বড় ধরনের ঝুঁকি রয়েছে।
কুইন্সল্যান্ডের কর্মকর্তারা জানান, বৌয়েন, ম্যাকেই ও হুইটসানডিজসহ ডেবি যেসব স্থানে আঘাত হেনেছে সেখানকার ৫০ হাজারের মতো লোক এখনো বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে।
ধ্বংসস্তুপ অপসারণ ও পরিচ্ছন্ন অভিযানে সহায়তায় সেনাবাহিনী ১ হাজার ৩শ’ সৈন্য মোতায়েন করেছে। এছাড়াও দুর্গত এলাকায় জরুরি অবকাঠামো সংস্কার ও ত্রাণ তৎপরতার জন্য হেলিকপ্টার ও বিমান মোতায়েন করা হয়েছে।

Comments

comments