মমতা কুলকার্নির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

২০১৬, ১৩ এপ্রিল। সামনে আসে ড্রাগ পাচারচক্র। সেদিন, ১২ লাখ টাকার ড্রাগ সহ দু’জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তদন্তে নেমে সোলাপুরের একটি কারখানা থেকে প্রায় ২০০০ কোটি টাকার মাদক উদ্ধার হয়। তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করা হয় ১৪ জনকে। পাঁচ অভিযুক্ত বিদেশে রয়েছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী মমতা কুলকার্নিও।

মমতা কুলকার্নি

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, মমতার বিরুদ্ধে কল রেকর্ড, হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ, ভয়েস মেসেজের মতো তথ্যপ্রমাণ তাদের হাতে ছিল। সেগুলি আদালতে দেওয়া হয়েছে। আর তারপরই আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। তথ্যপ্রমাণের জন্য বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে আরও কয়েকজন অভিযুক্তের।

থানে ক্রাইম ব্রাঞ্চের অ্যাসিস্টান্ট পুলিশ কমিশনার ভারত শেলখে জানিয়েছেন, পুলিশের কাছে মমতার বিরুদ্ধে পর্যাপ্ত তথ্যপ্রমাণ রয়েছে। একজন অভিযুক্ত নিজের দোষ কবুল করার পাশাপাশি ড্রাগস চক্রে মমতা কুলকার্নির ভূমিকার কথাও পুলিশকে জানিয়েছে।

Comments

comments